দৌলত মিঞার সার্থক নাম

     প্রসিদ্ধ বীর তৈমুরলঙ পঙ্গু ছিলেন। ভারতবর্ষে অনেক বিখ্যাত গায়ক আছেন শুনে তৈমুর বাদশা একদিন সভাসদদের আদেশ দিলেন বিখ্যাত কোনও গায়ককে তাঁর কাছে হাজির করতে। তিনি গান শুনবেন।
     সভাসদরা অনেক খুঁজে এক অন্ধ গায়ককে বাদশার দরবারে নিয়ে এলেন। তিনি অন্ধ হলেও ভাল গাইতে পারতেন।
     বাদশা তৈমুরলঙ গায়ককে আদেশ দিলেন একটি গান গেয়ে শোনাতে। যাতে মন ভরে যায় গান শুনে।
     অন্ধ গায়ক একটি গান শুনিয়ে সে-আদেশ পালন করলেন।
     বাদশা গান শুনে পরম প্রীত হয়ে গায়ককে জিজ্ঞেস করলেন, ‘তোমার নাম কী? তুমি কোথায় থাকো ?’
     গায়ক উত্তর দিলেন,‘আমার না দৌলত অর্থাৎ ভাগ্য। আমি রাস্তায় থাকি।’
     বাদশা বিজ্ঞসুলভ গাম্ভীর্যসহ বললেন, ‘তোমার নামটি ঠিকই রাখা হয়েছে, ভাগ্য অন্ধই বটে!”
     এ-কথা শুনে অন্ধ গায়ক সবিনয়ে বললেন, আপনি যথার্থই বলেছেন জাঁহাপনা! ভাগ্য যদি অন্ধই না হবে, তাহলে সে কি কখনও আপনার গৃহে প্রবেশ করত?
     একথা শুনে বাদশা তৈমুর কিন্তু রাগ করলেন না। বরং সন্তুষ্ট হয়ে গায়ককে প্রচুর পুরস্কার দিলেন এবং এও বললেন যে, মাঝে মাঝে এসে যেন তিনি গান শুনিয়ে যান।
Previous
Next Post »
0 মন্তব্য