অলস হতে বলিনি

     বাদশা একদিন ঘোষণা করলেন, “দিল্লি শহরে যত অলস ব্যক্তি আছে তারা আজ থেকে রাজ্যের অর্থভাণ্ডার হতে অন্ন, বস্ত্র ও আশ্রয় পাবে।’
     এমন সুখবর চারদিকে ছড়িয়ে গেল। যেখানে যত লোক ছিল তারা নিজের নিজের কাজকর্ম ফেলে দৌড়ে এল দিল্লি শহরে। লোকে লোকারণ্য হুলুস্কুল কাণ্ড। বিনা পরিশ্রমে যদি অন্ন, বস্ত্র আর আশ্রয় জুটে যায় তবে তো সেটা স্বৰ্গরাজ্য! তা ছাড়া মানুষের স্বভাবই এই আলস্য তার মজ্জাগত। বিনা পয়সায় খেতে পাওয়া ভাগ্যের কথা।
     বাদশা তাঁর নিজের ভুল বুঝলেন বটে, কিন্তু তার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ এল যে তিনি দেশজোড়া আলস্যকে প্রশ্রয় দিচ্ছেন। রাজ্য এবার রসাতলে যাবে। এমন অন্যায় কাজ করা
     তিনি অগত্যা বীরবলকে ডেকে বললেন, তাঁর মতো দূরদর্শীর উচিত হয়নি।
     তিনি অগত্যা বীরবলকে ডেকে বললেন, ওহে এটা ভুলই হয়েছে। আমি কাজের লোককে অলস হতে বলিনি, কেবল যারা প্রকৃত অলস তাদেরই ডেকেছিলুম। কিন্তু হিতে বিপরীত। তুমি যদি এখনই এর কিছু একটা বিহিত না করো তবে সত্যিই রাজ্য রসাতলে তো যাবেই, আমিও না দিয়ে পার পাব না। এই মুহুর্তে যদি তুমি কিছু করতে পারো করো। আমি আর পারছি না এর সমাধান করতে।'
     ঠিক আছে হুজুর আপনি কোনও চিন্তা করবেন না, যা করার আমিই করছি। এবার থেকে আপনাকে চিন্তা করতে হবে না।’
     বীরবল হুকুম করলেন, ‘সকলের জন্য পর্ণকুটীর নির্মাণ করা হোক।’
     তাই হল। 
     বীরবল আদেশ দিলেন, যত অলস ব্যক্তি এসেছে তারা গিয়ে ঘর দখল করুক, সবাই অন্ন বস্ত্র পাবে। কোনও কাজকর্ম করতে হবে না।’ 
     ‘তথাস্তু। হাজার হাজার অলস ব্যক্তি গিয়ে মজা করে সেইসব ঘরে ঢুকল। খাওয়া-দাওয়া, ঘুমনো—এই তো কাজ। 
     কেউ সেখানে কাজ করে না। খায়-দায় ঘুমোয় আর আড্ডা দেয়। পরিশ্রম করার কোন চেষ্টাই নেই।
     কোনও চেষ্টাও নেই। দু-চারজন আবার শুয়ে শুয়েই খায়। তাদের কী আনন্দে যে দিন কাটে, তা কী বলব! তারা সকলেই সম্রাটকে অজস্র ধন্যবাদ দেয়।
     বীরবল একদিন চুপিসারে হুকুম দিলেন মাঝরাতে সবাই যখন ঘুমেবে তখন ঘরে  আগুন লাগাও।
     যেমনি হুকুম তেমনি তামিল। ঘর সব পুড়ে আগুনে লাল হয়ে উঠল। চারদিকে কলরব! অলস লোকেরা ছুটে পালাতে লাগল যেদিকে তাদের চোখ যায়। একেবারে চোঁ চোঁ দৌড়। কেউ পেছনে ফিরেও তাকাল না, যে যার বাড়ির দিকে দৌড় দিতে লাগল।

     মাত্র চারজন পালাতে চিইল না। তারা জলজ্যান্ত টুরে মরবে সেও ভাল, কিন্তু পালাবার জন্য পরিশ্রম করবে না।
     বীরবল লোক দিয়ে সেই চারজনকে সম্রাটের সামনে এনে হাজির করলেন।
     বীরবল বললেন,‘আপনার রাজ্যে কেবল এই চারজনই প্রকৃত অলস লোক আছে সম্রাট। আর সব পালিয়ে গেছে। সম্রাট সব শুনে হেসেই অস্থির। বীরবলের কৌশল দেখে তিনি মুদ্ধ। তিনি জনসাধারণের সামনে দাঁড়িয়ে বীরবলকে সম্মানে ভূষিত করলেন ও অজস্র স্বর্ণমুদ্রা দিয়ে পুরস্কৃত করলেন।
Previous
Next Post »
0 মন্তব্য