ফল না, পয়সা খাচ্ছি - মোল্লা নাসিরউদ্দিন

     মোল্লা নাসিরউদ্দিন এক সময়ে হিন্দুকুশ পার হয়ে এসেছিলেন হিন্দুস্তানে। ঠিক করলেন তেষ্টা পেলেই হিন্দুস্তানের ফল-ফুলুরি দিয়ে তেষ্টা মেটাবেন।
     গেলেন বাজারে ফল-ফুলুরি কিনতে। একজন তার ধামা-ভর্তি লাল-লাল ফল নিয়ে বসেছিল। দেখেই তো মোল্লার জিভে জল!
     কয়েকটা কিনেই মুখে পুরলেন। অমনি জ্বলুনি শুরু হোল, মুখ চোখ দিয়ে পড়ছে শুধু জল আর জল।
     ঠিক ঐ সময়ে, এক কাবুলীওলা যাচ্ছিল পাশ দিয়ে। মোল্লা তাকে ডেকে বলেন, ‘ভাই, এই ফলগুলো সব শয়তানের সৃষ্টি।’

     কাবুলীওয়ালা তো দীর্ঘদিন এখানে থেকে হিং-পেস্তা-বাদাম বেচে। সে বললো, সে কি? আপনি হিন্দুস্তানের লঙ্কার নাম শোনেন নি?—একটা খেলেই হোল,—চোখে সর্ষে ফুল দেখবেন?
     ‘তা হোক, আমি ওর গোটা ঝুড়ি নামমাত্র দামে কিনে ফেলেছি যে —ঝুড়ি শেষ না করে উঠছি না।’
     ‘তাই বলে সবগুলো খাবেন? ঐ ফল, মানে লঙ্কা, তরকারীতে এক/আধটা দ্যায়। আর ভুলেও খাবেন না যেন?
     ‘তা আর হয় নাকি ? এত সস্তায় এতগুলো ফল পেয়ে ফেলে দেয় কোন বুরবক্‌? আমি তো ফল খাচ্ছি না, পয়সা খাচ্ছি।’
Previous
Next Post »
0 মন্তব্য