খেয়ালী রাজা -- অনুরাধা দেবী

   গৌড় দেশে দেববর্মা নামে এক রাজা ছিল । ঐ রাজা যেমন ছিল মূর্থ তেমনি খেয়ালী । যখন যা ইচ্ছে করত ।
   দেববর্মার দর্শন প্রার্থী হয়ে একদিন এক নকল সাধু এলো। বিরাট দাড়ি আর মাথায় গোছাকরে জটা বাঁধা । রাজাকে ঐ সাধু বলল, “মহারাজ, আপনি অনেক বছর ধরে আপনার একটি ইচ্ছা পূরণ করতে পারছেন না । তার জন্য কষ্ট পাচ্ছেন ৷ কী আপনার ইচ্ছা ? অামার তপস্যা শক্তি বলে পারলে আপনার ঐ ইচ্ছা পূরণ করার উপায় বলে দেব।”
   তৎক্ষণাং দেববর্মা বলল, “হে মান্যবর সাধু, আপনি ঠিকই ধরেছেন । আমি রাজা হয়েও ঠিক রাজ চক্রবর্তী হতে পারছিনা । এটাই আমার বড় অনুতাপ । আপনি কি এর কোন বিহিত করতে পারেন " রাজা জিজ্ঞেস করল।
   নকল সাধু গভীর ভাবে চিন্তা করার মত কিছুক্ষণ অভিনয় করে রাজাকে বলল, “আপনি যা ভাবছেন তা মিথ্যা নাও হতে পারে । আপনার ঠিকুজি কোষ্ঠি একবার দেখাবেন ?”
   রাজা রাজজ্যোতিষীকে তার কোষ্ঠী সাধুকে দেখাতে বলল।
   সাধু কোষ্ঠ দেখে বলল, “ইস্ কুড়ি বছর আগে আপনার ইচ্ছা পূরণের সুযোগ একেবারে কান ঘেসে চলে গেছে। তখন যদি গ্রহশান্তি করানো যেতো তাহলে অবশ্যই আপনার ইচ্ছা পূরণ হোত । এ-খ-ন-ও সে সুযোগ যে চলে গেছে তা নয় । কিন্তু আরও এইভাবে আপনাকে কুড়িটি বছর কাটাতে হবে । তারপর দেখবেন আপনার সব ইচ্ছা পূরণ হয়ে যাচ্ছে।” সাধু বলল।
   খেয়ালী রাজা সাধুর কথায় খুব খুশী হয়ে নকল সাধুকে অনেক অর্থ দিয়ে বিদায় করল?


  সেই থেকে ঐ রাজ চক্রবর্তী বা সম্রাট হবার ইচ্ছা প্রবলতর হতে লাগল। রাজ্য ডেকে পাঠালো সমস্ত জ্যোতিষীকে। বলল, “কাল থেকে সমগ্র দেশের পাঁজি কুড়ি বছর এগিয়ে দিয়ে নতুন পাঁজি তৈরি করুন। এই নতুন পাঁজিতে তিথি, বার, নক্ষত্র সবই কুড়ি বছর এগিয়ে থাকবে ?” জ্যোতিষীদের তো মাথায় হাত । কি করবে ভেবে পায়না । শেষে ওরা মন্ত্রীর কাছে গিয়ে সব বলল ।
   মন্ত্রী রাজার কাছে গিয়ে বলল, “মহারাজ,আপনি পাঁজি কুড়ি বছর এগিয়ে দিতে বললেন? তার ফলে যে জটিলতা দেখা দেবে আপনি হয়তো ভাবেননি ।”
   “জটিলতা আবার কিসের ?” রাজা জিজ্ঞেস করল ।
   “আপনার বয়স এখন চল্লিশ বছর । নতুন পাঁজি করলে আপনার বয়স হবে ষাট বছর । যুবরাজের বয়স হবে
পঁচিশ । তখন তাকে সিংহাসনে বসিয়ে আপনাকে যেতে হবে বানপ্রস্থে ।” মন্ত্রী বলল।
   রাজা বলল “তাহলে তো বড় গোলমাল। একটা কাজ করি । কুড়ি বছর পেছিয়ে দিয়ে নতুন পাঁজি তৈরি করাব । তাড়াতাড়ি গ্রহশান্তি করিয়ে আমি সম্রাট হয়ে যাব ।”
   “তাতে আরও বেশি করে জটিলতা দেখা দেবে । সিংহাসনে বসার অধিকার আপনার থাকবেনা। আপনার পিতা এখনও বেশ শক্ত সমর্থ আছেন । কুড়ি বছর পেছিয়ে দিলে উনি কি আর সিংহাসন ছাড়বেন? ” মন্ত্রী প্রশ্ন করল। 
   রাজা ভীষণ ভয় পেয়ে বলল, “না ! মা !” জ্যোতিষীদের তক্ষুণি ডেকে পাঠিয়ে, “আপনাদের মধ্যে কেউ কুড়ি বছর এগিয়ে অথবা কুড়ি বছর পেছিয়ে পাঁজি তৈরি করার কথা যদি ভাবেন তাহলে তার শিরচ্ছেদ করা হবে ।" রাজা সোচ্চারে ঘোষণা করে দিলেন ।
Previous
Next Post »
0 মন্তব্য