পোশাকটা কার? -- মোল্লা নাসিরউদ্দিন

    নাসিরউদ্দিনের এক ঘনিষ্ট বন্ধু ছিল। একদিন নাসিরউদ্দিন কোথাও বেড়াতে যাবেন, তাই বন্ধুকেও সঙ্গী হতে অনুরোধ জানালে পর, বন্ধু বলে,—‘ভাই, তুমি তো সুন্দর পোষাক পরেছ, আমার এ ছেড়া পোষাকে ওখানে যেতে পারবো না।
     তখন নাসিরউদ্দিন নিজের একটা বাহারি পোষাক বন্ধুকে পরতে দিলেন।
    পরে যথাস্থানে এসে নাসিরউদ্দিন সেই বাড়ীর কর্তার সঙ্গে বন্ধুর পরিচয় করাতে গিয়ে বলেন, —‘ইনি আমার এক বিশিষ্ট বন্ধু। ইনি যে পোষাকটা পরে আছেন ওটা আমারই।
    বাইরে বেরিয়ে এসে বন্ধু তো মহাখাপ্পা। এ্যাঁ তুমি তো আচ্ছা লোক হে! পোষাকটা যে তোমারই, সে কথা আগ বাড়িয়ে বলাটা কি ঠিক হোল?
    —পথে যেতে যেতে আর এক আত্মীয়ের সঙ্গে নাসিরউদ্দিনের দেখা। বন্ধুর সঙ্গে তার পরিচয় করিয়ে নাসিরউদ্দিন বলেন— ‘ইনি যে পোষাকটা পরে আছেন, ওটা কিন্তু ওঁর নিজেরই।’
    বন্ধুটি চটে লাল! বারবার এহেন অপমান! তাছাড়া মিথ্যে কথা বলাটা কি উচিত ছিল মোল্লাবন্ধুর? তাই সতর্ক করে দেয় নাসিরউদ্দিনকে, ‘দেখো ভাই, অতঃপর কাউকে আর আমার পোষাকের কথাটা বোল না।’
    রাস্তায় যেতে যেতে নাসিরউদ্দিন দেখা পেলেন আর এক বন্ধুর। তিনি আগন্তকের সঙ্গে বন্ধুর পরিচয় করিয়ে দিয়ে বললেন—‘দেখুন ইনি যে পোষাকটা আজ পরে আছেন—সে পোষাকটা কার, সে সম্বন্ধে কিছু না বলাই ভালো মনে করি।’

Previous
Next Post »
0 মন্তব্য