অপয়া কে? -- মোল্লা নাসিরউদ্দিন

   শাহানশা শিকারে বেরোবেন, এমন সময় মোল্লা হাজির। মোল্লারও অবশ্য ঐ শিকারে সঙ্গী হবার কথা ছিল, কিন্তু মোল্লার দেরী দেখে হুজুরের মেজাজ ছিল খাপ্পা। তাই মোল্লাকে দেখেই হুকুম দিলেন সেনাপতিকে,—‘ঐ ব্যাট অযাত্ৰা-অপয়াকে চাবুক মেরে তাড়াও, ওর মুখদর্শনে শিকার জোটে কিনা সন্দেহ?
   মোল্লা ছাড়াই শিকারে গেলেন শাহানশা। সেদিন কিন্তু শিকারে অনেক জন্তু-জানোয়ার পাওয়া গেল। শাহানশার মেজাজ সরিফ ।
   ফিরে এসে মোল্লা নাসিরউদ্দিনের তলব। শাহানশা তাকে বললেন,—“মোল্লা ভাই, তোমাকে অপয়া ভেবেছিলাম। দেখা গেল তা ভুল ।
   করুণ স্বরে মোল্লা বললেন—“অপয়া আমি, না আপনি ?
   —“তার মানে ?— শাহানশার জিজ্ঞাসা ।
  ‘আজ্ঞে, আমার মুখ দেখে যাত্রা করেছিলেন বলেই এত শিকার জুটলো। আর, উল্টো আপনার মুখ দেখেছিলাম বলেই আমার ভাগ্যে জুটলো চাবুক আর অপমান।--তাহলে অপয়া কে?

Previous
Next Post »
0 মন্তব্য