আগে দরজা ফেরত দিন -- মোল্লানাসিরউদ্দিন

গিল্পী বাপের বাড়ীতে এদিকে নামাজ পড়ার সময় হয়েছে, তালাচাবি খুঁজে না পেয়ে অগত্যা দরজার দুটো পাল্লা টেনে উপরের দিকে তাকিয়ে খোদার উদ্দেশ্যে প্রার্থনা জানালেন নাসির,—‘খোদা, আমার ঘর পাহারা দেবার ভার তোমার ওপর ছেড়ে দিয়ে গেলুম।"
নামাজ সেরে এসে নাসির দেখেন-চোর হাতের কাছে আর কিছু না পেয়ে দরজার ছুটে পাল্লাই হাঁসকল থেকে খুলে নিয়ে পালিয়েছে।
ভীষণ রেগে নাসিরউদ্দিন করলেন কী, মসজিদে গিয়ে ওখানকার দরজার দুটি পাল্লা বয়ে এনে নিজের দরজায় লাগিয়ে দিলেন।
এদিকে নাসিরউদ্দিনের এ হেন কাণ্ড-কারখানার কথা কারুর জানতে বাকী রইলো না । লোকজন সহ ইমাম এসে হাঁকডাক ছাড়েন— তোমার আস্পর্দা তো কম নয় উজবুক ! শেষে মসজিদের, মানে খোদার খোদ দরজাই চুরি করলে! যাও, জলদি ও-দুটো কপাট মসজিদে লাগিয়ে এসে ।’
মোল্লা দাঁড়িতে হাত বুলোতে-বুলোতে মুচকি হেসে বলেন— 'ইমাম সাহেব, আপনি খামোখা রাগ করছেন । ব্যাপারটা শুনুন তবে । চাবিতালা না পেয়ে আমি দরজা খোলা রেখে ঘর রক্ষার ভার খোদ খোদাকে দিয়ে গিয়েছিলুম। চোরকে চুরি করতে দেখেও খোদা কেন তাকে বাধা দিলেন না ? যে পর্যন্ত খোদা আমার দরজা ফেরৎ না দেন, আমিও মসজিদের দরজা ফেরৎ দিচ্ছি না।’
—অগত্যা ইমাম কিছু টাকা দিয়ে দরজাগুলো ফেরত পেলেন ।
Previous
Next Post »
0 মন্তব্য