মাছরাঙা ও সমুদ্র

মাছরাঙা পাখী নির্জন জায়গায় থাকতেই বেশি ভালবাসে, তাই সে যেখানে লোকের আনাগোনা নেই--সমুদ্রের ধারে এমন কোন পাথুরে পাহাড়ের উপরই তার বাসা তৈরী করে, সেখানেই ডিম পাড়ে।
এক মাছরাঙা তার ডিম পড়বার সময় হ'লে সমুদ্রের উপর ঝুঁকে পড়েছে এমন একটা পাহাড়ের উপরই তার বাসা তৈরি করলো !
বাসা তৈরি সে করলো, ডিম সে পড়লো, বাচ্চা হলো ; একরকম নিশ্চিন্তই ছিল সে, কিন্তু— হঠাৎ একদিন ভয়ংকর ঝড় উঠলে সমুদ্র গেল ক্ষেপে, দারুণ উচু উঁচু ঢেউ উঠে সমুদ্রের পাড় ভাঁসিয়ে দিতে লাগল। এই সব ঢেউয়ের চোটে পাখির বাচ্চাসমেত তার বাসা কোথায় উধাও হয়ে গেল ।
পাখিটা তখন 'হায় হায়’ করে বলতে লাগল, এমনি আমার কপাল, শুকনো ডাঙার বাসায় লোকের ভয় আছে মনে করে আমি বন্ধু সমুদ্রের আশ্রয় নিলাম, সেই বন্ধুই শেষে আমার সঙ্গে শত্রুতা করলো!

উপদশে: শত্রুর হাত থেকে ছাড়া পেতে লোকে তাদের বন্ধুদের আশ্রয় নেয়, ভাগ্যবেশে এই বন্ধুরাই অনেক সময় তাদের সর্বনাশ করে।
Previous
Next Post »
0 মন্তব্য