খাঁটি হিসেব-নিকেশ

দিল্লি শহরে একবার বড়ই ইঁদুরের উৎপাত হয়। দিবারাত্র ইঁদুরের দৌরাত্ম্যে লোকে একেবারে দিশাহারা। সম্রাট একবার স্থির করলেন, কত সংখ্যক ইঁদুর দিল্লিতে বাস করে তার একটা হিসেব রাখবেন। কে তাঁকে এই হিসেব দেবে? যে দেবে তাকে প্রচুর পরিমাণে পুরস্কার দেওয়া হবে। সম্রাটের কথামতো কেউ ইঁদুরের হিসেব দিতে পারলেন না।
এর মধ্যে কিছু লোক সম্রাটকে বীরবলের কথা বললেন, ‘একমাত্র বীরবলই পারবে ইঁদুরের হিসেব দিতে। বীরবল শুনে বলেন, ‘সে তো অনেক আগে থেকেই করে রেখেছি সম্রাট। কারণ আপনি ডাকবেন বলেই আমি করে রেখেছি।’
সবিস্ময়ে সম্রাট বললেন, কীরকম?” 

আজ্ঞে হাঁ, ওদের সংখ্যা হল দশ লক্ষ পঞ্চাশ হাজার পাঁচশো বাহান্ন। একেবারে পাকা হিসেব!’ 
‘কেমন করে হিসেব নিলে? যদি কম-বেশি হয় কিন্তু তোমার গর্দান যাবে।
তা তো হতেই পারে সম্রাট। যদি বেশি হয় তবে বুঝতে হবে বাইরে থেকে ওদের আত্মীয় বন্ধুরা এসে ওদের কাছে আতিথ্য নিয়েছে। আর যদি কম হয়, বুঝতে হবে ওরা গিয়েছে বিদেশে আত্মীয় বন্ধুদের সঙ্গে আমোদ আহ্লাদ করতে।’
সম্রাট আনন্দে হেসে বললেন, ঠিক কথাই বলেছ বীরবল। যারা বীরবলকে অপদস্থ করার জন্য বলেছিলেন, ‘তাদের মুখ একেবারে চুন।’
Previous
Next Post »
0 মন্তব্য