সৈনিক ও ঘোড়া

এক সৈনিকের একটা ঘোড়া ছিল । ঘোড়াটাকে লড়াইয়ের সময় তার মালিকের সঙ্গে একই রকম বিপদ আপদের মাঝে অনেক কাল কাটাতে হয়েছে। সে মালিকের কাছে খুব যত্নও পেয়েছে তখন। খেতেও দেওয়া হয়েছে তাকে যব গম ছোলা। যুদ্ধ শেষ হয়ে গেল, আর তার আদর-যত্নও ফুরালো। গাধার মত বোঝা বইতে লাগানো হ’ল তাকে । খেতে দেওয়া হতে লাগল শুধু ভুষি । -
এরপর আবার যখন যুদ্ধের ভেরী বেজে উঠল, তখন সৈনিকের দরকার পড়ল ঘোড়াটা । সৈনিক নিজে রণসাজে সেজে ঘোড়াটার মুখে লাগাম–পিঠে জিন লাগিয়ে তার উপর চেপে বসল। কিন্তু ঘোড়াটার আর আগেকার মত শক্তি নেই, চলতে গিয়ে পদে পদে হোচট খেতে লাগল। সে তখন সৈনিককে বললে, কি আর করব বলো, আমি আর আগেকার সেই ঘোড়া নেই, তুমি গিয়ে এবার পদাতিক-দলে নাম লেখাও । ঘোড়াই আমি ছিলাম, কিন্তু তুমি আমায় গাধাতে পরিণত করেছ এখন আর তুমি আমায় ঘোড়া করবে কি করে?

উপদেশ: সুখের দিন পেয়ে যাকে তুমি অবহেলা করেছ, তোমার দুঃখের দিন এলে সে কথা কি সে ভুলে যায়? যার কাছ থেকে কাজ পাওয়া যায়, অসময়ে তাকে দেখতেও হয়।

Previous
Next Post »
0 মন্তব্য