পাকা কি কখনও কাঁচা হয়?

বৃদ্ধ সম্রাট তাঁর পাকা চুলে মাঝে মাঝে কলপ করাতেন। কলপ দিলে নাকি বয়স খুব কম দেখায়।
একদিন সম্রাট নির্জন ঘরে বসে সবেমাত্র কেশকারকে নিয়ে নিজের মাথায় কলপ লাগাবার সামগ্রীগুলি বের করেছেন, এমন সময় বীরবল কী এক রাজকার্যে সম্রাটকে খুঁজতে খুঁজতে সেখানে এসে হাজির। সম্রাট একটু থেমে যেন রেগে গেলেন, তারপর সামলে একটু লজ্জিত হয়ে বললেন, “তোমাকে একটা কথা জিজ্ঞেস করব ভাবছিলুম।’

বীরবল থমকে একবার দাঁড়িয়ে বললেন, হুকুম করুন সম্রাট। আমি না জেনেশুনে হঠাৎ বিশেষ দরকারে এখানে এসেছি। আপনি এজন্য আমাকে ক্ষমা করুন। এ সময় আসা সত্যিই আমার অন্যায় হয়েছে। কিন্তু সম্রাট সে কথায়
কান না দিয়ে প্রশ্ন করলেন, "আচ্ছা বীরবল, মাথার চুলে কলপ মাখলে মস্তিষ্কের কোষের কোনও অনিষ্ট হয় কিনা ?
বীরবল অতি ধূর্ত। একবার তিনি বাঁকা চোখে ওই সামগ্ৰীগুলির দিকে তাকালেন। পরে বললেন, সম্রাট, ভয় কিছু নেই।’ ভয় নেই—মানে ? 
‘একটু সুবিধে কী জানেন সম্রাট, যারা মাথায় চুলে কলপ মাখে, তাদের মস্তিষ্ক নামক পদার্থই নেই। সেইজন্য মস্তিষ্কের অনিষ্টের কোনও কথাই ওঠে না।’ -
বাদশা আশ্চর্য হয়ে গেলেন। বললেন, “এ কী বলছ বীরবল ? কেমন করে জানলে তাদের মস্তিষ্ক নেই?’
বীরবল একটু হাসলেন। বললেন, ‘হুজুর মস্তিষ্ক থাকলে কি তারা বাজে কাজে সময় নষ্ট করত? পাকা কি কখনও কাঁচা হয় ? বার্ধক্য কি কখনও যৌবন ফিরিয়ে এনে দেয় ? নদীর জল কি কখনও ফিরে যায় পাহাড়ে ?”
সম্রাট লজ্জিত হয়ে সেখান থেকে পালিয়ে বাঁচলেন যেন!

Previous
Next Post »
0 মন্তব্য