মিস ট্রড -- জার্মানের রূপকথা

এক সময় ছিল এক একগুঁয়ে অকালপক্ক ছোটো মেয়ে । বাবা-মার কোনো কথাই সে শুনত না । তাই সে সুখী হতে পারে নি। একদিন সে তার বাবা-মাকে বলল, “মিস্ ট্রেড-এর কথা আমি অনেক শুনেছি । তার সঙ্গে দেখা করতে যাব । সবাই বলে তার বাড়িতে অনেক আশ্চর্য আর মজার-মজার জিনিস আছে। সেগুলো দেখার আমার ভারি ইচ্ছে ।”
তার বাবা-মা তাকে যেতে বারণ করে বলল, “ট্রেড একেবারেই ভালো মেয়ে নয় । নানারকম তুকতাক করে থাকে । তাঁর সঙ্গে গিয়ে দেখা করলে তোকে আমরা ত্যাজ্যকন্যে করব ।” কিন্তু মেয়েটি বাবা-মার কথা একেবারেই কানে তুলল না । মিস্ ট্রড়-এর সঙ্গে দেখা করতে গেল । সেখানে যেতে সে প্রশ্ন করল, তার মুখ অমন ফ্যাকাশে কেন ।
মেয়েটি থর থর করে কাঁপতে-কাঁপতে বলল, “আমি ভীষণ ভয় পেয়েছি । দেখলাম—”
“কী দেখলি ?”
“আপনার সিঁড়িতে কুচকুচে কালো একটা লোককে দেখলাম।”
“সে-লোকটা কাঠকয়লা পোড়ায় ।”
“তার পর দেখলাম এক সবুজ রঙের লোক ?”
“সে-লোকটা শিকারী ।”
“তার পর দেখলাম রক্তের মতো টকটকে লাল রঙের একটা লোক ৷”
“সে-লোকটা কসাই ।”
“তার পর আপনার জানলা দিয়ে উকি দিয়ে আপনাকে দেখতে পেলাম না । তার বদলে দেখি শয়তানকে। মাথায় তার দাউ দাউ করে আগুন জ্বলছে। দেখে আমি শিউরে উঠি।”
হো-হো করে হেসে উঠে মিস্ ট্রেড বললেন, “তুই শুধু ডাইনিকে দেখেছিলি। তার গায়ে ছিল উপযুক্ত গয়নাগাটি। তোর জন্যে, বাছা, অনেকদিন অপেক্ষা করে আছি। এইবার তুই পুড়বি।"
এই-না বলে সেই অবাধ্য ছোট্টা মেয়েটিকে মিস্ ট্রেড এক টুকরো কাঠ করে দিয়ে ছুড়ে ফেলল আগুনের মধ্যে। সেটা গনগনে লাল হয়ে উঠতে তার উপর গিয়ে বসে নিজের শরীরটা সেকে গরম করতে করতে সে বলল, “ভারি জ্বলজ্বল করে মেয়েটা জ্বলছে তো "
Previous
Next Post »
0 মন্তব্য