ভিক্ষুক -- মোল্লা নাসিরউদ্দিন

এক গ্রীষ্মের দুপুরে, কড়া রোদে সবাই যখন হাসফাঁস করছে দরজা-জানাল বন্ধ করে, এমন সময়ে নাসিরুদ্দিনের বাড়ীর দরজার সজোরে করাঘাত । .
দোতলা বাড়ীর চিলেকোঠায় দিব্যি বিশ্রাম করছিলেন নাসিরুদ্দিন । বেশ বিরক্তির সঙ্গে উপর থেকে জিজ্ঞেস করলেন গৃহকর্তা কি চাই এই অসময়ে ?
‘আজ্ঞে, দয়া করে নীচে নেমে আসুন, বলছি।’ গলা শোনা গেল আগন্তুকের ।
অগত্য গৃহকর্তা বাধ্য হয়ে নীচে নেমে দরজা খুলতে লোকটি বললে, ‘হুজুর, আমি একজন ভিখারী। কিছু ভিক্ষ চাই।’
'ও, এই কথা। চলো আমার সঙ্গে ওপরে।’ 
লোকটা আশান্বিত হয়ে পায়ে পায়ে ওঠে আসে সেই ওপরের চিলেকোঠায় ।
নাসিরুদ্দিন তার বিছানায় আরাম করে বসে বলেন-শোনে হে, আমি কিছু ভিক্ষে দিতে অক্ষম –মাপ করো।’
ভিখারী রাগতস্বরে বলে-"ঐ কথাটা তো গোড়াতেই বলতে পারতেন। খামোখা উপরে টেনে আনলেন কেন ?
‘দেখ বাপু’, নাসিরুদ্দিনের জবাব, ঠিক যে কারণে তুমি আমাকে নীচে নামিয়েছিলে, সেই কারণেই তোমাকে ওপরে তুলে এনেছি।’


Previous
Next Post »
0 মন্তব্য