পরশমণি

বাইরের বিভিন্ন দেশে রটে গিয়েছিল, আকবর বাদশা যমুনার জলে পরশমণি পেয়েছেন। পরশমণির জন্য আকবর সবচেয়ে সুখী আছেন।
একদিন পারস্যের বাদশা সেই মণি দেখবার জন্য দিল্লি এলেন। আকবর বাদশার প্রাসাদে এসে বললেন, আপনার ভাণ্ডারে যে পরশমণিটি আছে, একবার আমাকে সেটি দেখাতে হবে। না দেখালে আমি কিন্তু যাব না।’
আকবর বাদশা হেসে বললেন, একটু অপেক্ষা করুন, আনছি।
ভেতরে গিয়ে বীরবলের হাত ধরে ফেললেন তিনি, তাকে পারস্যের বাদশার সামনে নিয়ে এলেন টানতে টানতে। 

পারস্যের বাদশা বললেন, “পরশমণিটি আনলেন না? অথচ টানতে টানতে একটা মানুষকে নিয়ে আসছেন।" 

তৃপ্তস্বরে বীরবলকে দেখিয়ে আকবর বাদশা বললেন, ‘এটিই আমার সেই পরশমণি। আপনার যা দেখার আছে দেখে নিন।’ পারস্যের বাদশা বীরবলকে দেখে ও সমস্ত বুঝে যারপরনাই আনন্দিত হলেন।
Previous
Next Post »
0 মন্তব্য