দইয়ের সরবৎ -- মোল্লা নাসিরউদ্দিন

একদিন বাদশা শিকার করে ফেরার পথে ভীষণ তৃষ্ণার্ত হয়ে তাঁর দেহরক্ষীসহ নাসিরুদ্দিনের বাড়ি এলেন।
'ঘোড়া থেকে না নেমেই বাদাশ আদেশ করেন—কে আছে হে বাড়িতে ? জলদি দু’ গ্লাস দইয়ের সরবৎ পাঠাও।
দোতলা থেকে নাসিরুদ্দিন নেমে এসে হাত জোড় করে বিনীত ভাবে আবেদন পেশ করেন-‘হুজুর, আজ সকালেই বেজায় তেষ্ট পাওয়ায় আমি সবটা দই শেষ করে ফেলেছি। গোস্তাকি মাফ করুন জাঁহাপনা ।”
অসন্তুষ্ট বাদশ রাগে গজগজ করে ফিরে চললেন। বেশ কিছুটা গেছেন, এমন সময় দোতলা থেকে নাসিরুদ্দিনের চিৎকার শুনতে পান বাদশা, জাঁহাপনা, ফিরে আসুন, ফিরে আসুন। 
দই-এর সরবৎ খাবার আশায় ফিরে আসেন বাদশা । নীচে দরজার সামনে হাতে একটা দইয়ের ভাঁড় উল্টো করে ধরে নাসিরুদ্দিন বলেন-‘হুজুর, আপনি হয়তো বিশ্বাস করলেন না কথাটা । তাই এই খালি ভাঁড়টা দেখাতে ডাকলাম।’

Previous
Next Post »
0 মন্তব্য