মুক্তো দান

বীরবলের কোনও এক কাজে সন্তুষ্ট হয়ে তাকে মূল্যবান দুটি মুক্তো দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন আকবর, কিন্তু তিনি কথামতো মুক্তো দেননি। 
দিন যায়, কিন্তু মুক্তো আর দেন না বাদশা। শেষ পর্যন্ত একদিন মুখ ফুটে মুক্তো দুটো চেয়ে বসলেন বীরবল। 
বাদশা বললেন, মনে আছে। যা দেব বলেছি তার জন্য চিন্তা কীসের।' 
এরপর থেকে যখনই মুক্তোর কথা বলতেন বীরবল, বাদশা কোনও জবাব না দিয়ে ঘাড় হেট করে থাকতেন। কোনও কিছুই বলতেন না। 
একদিন আকবর আর বীরবল রাস্তা দিয়ে যাচ্ছেন, বাদশা দেখলেন, একটা উট ঘাড় নিচু করে হেঁটে যাচ্ছে। বাদশা বললেন, ‘বীরবল উটটা অমন ঘাড় নিচু করে হাঁটছে কেন? তুমি কি বলতে পারো ?’ 

বীরবল বললেন, ‘খোদাবন্দ, উটটা বোধ হয় কাউকে এক জোড়া মূল্যবান মুক্তো দিতে চেয়েছিল, কিন্তু এখন আর দেওয়ার ইচ্ছে নেই। যাকে দিতে চেয়েছিল আমার মনে হয় তার সঙ্গে যদি হঠাৎ দেখা হয়ে যায়, নিশ্চয়ই সেই ভয়েই অমন ঘাড় নিচু করে চলেছে হুজুর। 

বীরবলের কথা শুনে আকবর অত্যন্ত 'লজ্জিত হলেন এবং সেদিনই প্রাসাদে ফিরে প্রতিশ্রুতি মতো মুক্তোদুটি বীরবলকে দান করলেন।
Previous
Next Post »
0 মন্তব্য