খরগোশের আত্মজ্ঞান

খরগোশদের এক সভায় সেদিন তাদের নিজেদের দুর্দশার কথা নিয়ে আলোচনা হল: জীবন তাদের একেবারেই নিরাপদ নয়,-- সব সময় ভয়ে ভয়ে থাকতে হয়। কাকে না ভয় তাদের? মানুষ, কুকুর, ঈগল--এ ছাড়া কত জন্তুই না তাদের শিকারের জন্য ওঁৎ পেতে আছে। সব সময় এদের ভয়ে কাঁপতে কাঁপতে বেঁচে থাকার চেয়ে একবার এক সাথে মৃত্যুবরণ করা ঢের ভাল।

এই সব আলোচনার পর মরার সিদ্ধান্ত নিয়ে তারা সবাই মিলে এক পুকুরের ধারে এসে হাজির হল, এতেই ঝাঁপিয়ে পড়বে তারা।
পুকুরের কিনারায় বসে ছিল তখন অনেক ব্যাঙ। ব্যাঙগুলি খরগোশ আসার শব্দ শুনেই ঝপাঝপ জলে লাফিয়ে পড়ল। ব্যাপার দেখে খরগোশের মধ্যে মাথায় যার একটু বেশি বুদ্ধি বেশি ছিল সে আর সবাইকে যেকে বলল,-- দেখেছ তো! আমাদের চেয়ে ঢের বেশি ভয় করে চলতে হয় তারাও বেঁচে আছে, সুতরাং আমরা মিছিমিছি মরতে যাই কেন?

উপদেশ: নিজের চেয়ে বেশি দুর্দশাগ্রস্থ কাউকে দেখলে নিজের দুর্দশার কিছুটা সান্তনা মেলে।
Previous
Next Post »
0 মন্তব্য