গুণের আদর

নাম তার আয়াজ।
দেখতে শুনতে খুব একটা সুন্দর নন। যেমন বেঁটে তেমনি কালো। চোখদুটো কুতকুতে। তোতলা। কথা বলতে গেলে জিভ জড়িয়ে আসে।
কিন্তু সুলতান মাহমুদ তাকে খুব ভালোবাসেন। সুলতানের অনুচরদের মধ্যে সে খুব প্রিয়। অন্যরা তাই খুব হিংসা করত আয়াজকে। রুপবান  এবং শক্তিমান এত অনুচর থাকতে আয়াজকে কেন এত পছন্দ করে সুলতান?
এই প্রশ্ন সকলের।
একদিন সুলতান মাহমুদের সভাসদ হোসেন এলেন অনুচরদের আস্তানায়। কয়েকজন অনুচর তাকে ঘিরে ধরল। তারা জিজ্ঞাসা করল-- এত শক্তিমান, রুপবান অনুচর থাকতে আমাদের প্রিয় সুলতান কেন আয়াজকে বেশি ভালোবাসেন?
প্রশ্ন শুনে হোসেন মিটিমিটি হাসলেন।
--রূপের চেয়ে গুণের মূল্য অনেক বেশি। রূপ দেখে আমরা মুগ্ধ হই বটে কিন্তু মর্যাদা দেই গুণীব্যাক্তিকে। মানুষ তার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করে গুণ দিয়ে, রূপে নয়। যে সকলকে ভালোবাসে, দেখতে অসুন্দর হলেও সে সকলের ভালোবাসা পাবে। পৃথিবীতে যাঁরা বিখ্যাত মানুষ তাঁরা সকলেই গুণের কারণে বিখ্যাত হয়েছেন--রূপের কারনে নয়।

আমাদের আয়াজ তোমাদের সকলের মধ্যে সবচেয়ে গুণবান। সুলতান মাহমুদ গুণের সমাদর করতে জানেন। তাই তিনি আয়াজকে সবচেয়ে বেশি পছন্দ করেন। তোমরাও রূপবান হওয়ার চেয়ে গুণবান হওয়ার চেষ্টা করো। তাহলে জীবনে উন্নতি করতে পারবেন।
Previous
Next Post »
0 মন্তব্য