সাবাস

একবার শীতকালে হোজ্জা একটি হররতখানা তৈরী করে সেখানে বাঙ্গির চাষ করল। বাঙ্গি পাকলে হোজ্জা ভাল পয়সা রোজগারের আশায় কয়েকটি সেরা বাঙ্গি বেছে নিয়ে বাদশাহর কাছে বিক্রি করতে গলে। কিন্তু হায়, কে জানত যে বাদশাহ বাঙ্গিগুলো নিয়ে একটি পয়সাও হোজ্জাকে দেবেন না। তিনি শুধু একজন ভাল প্রজা বলে হোজ্জার ভূয়সী প্রশংসা করলেন এবং পরপর তিনবার ‘সাবাস’ বললেন।

রাজপ্রসাদ থেকে বের হয়ে এলে হোজ্জার খুব খিদে পেল। কিন্তু পকেটে একটি পয়সাও নেই, কি হবে? ভাবতে ভাবতে সে একটি হোটেলে এসে কুড়িটি মাসের চপ খেয়ে ফেলল।
খাওয়া শেষ করে সে তিনবার ‘সাবাস’ বলে হোটেল থেকে বাইরে যাবার জন্য পা বাড়াল। হোটেলের মালিক তখন চিৎকার করে উঠল, ‘পয়সা কই? তুমি পয়সা দাও নি তো!’
‘কি বলছ? এক্ষুণি তোমাকে পয়সা দিলাম না!’ হোজ্জা আশ্চর্য হয়ে তাকে বলল।
মালিক আর কথা না বলে হোজ্জাকে ধরে নিয়ে বাদশাহর কাছে হাজির হল। বাদশাহ সব ঘটনা শুরে হোজ্জাকে গালি দিতে দিতে বললেন, ‘হোজ্জা, তুমি চপ খেয়ে পয়সা দাওনি কেন?’

উত্তরে হোজ্জা বলল, ‘জাহাঁপনা, আমার কোন দোষ নেই। এই মালিক খুবই লোভী। আমি মাত্র কুড়িটি মাংসের চপ খেয়েছি এবং আপনি আমার বাঙ্গিগুলো কেনার পর আমায় যে তিনবার ‘সাবাস’ দিয়েছিলেন আমি সেগুলিই দিয়েছি। সে আবার পয়সা চাইছে কি করে?
বাদশাহ একথা শুনেই চুপ করে গেলেন।
Previous
Next Post »
0 মন্তব্য