দেয়ালের উপদেশ

অনেকদিন আগের কথা। বনী ইসরাঈলের এক লোক ছিল। তাঁর দুজন ছেলে ছিল। লোকটি যখন মারা গেল দুইছেলে তখন পিতার সমস্ত সম্পত্তি ভাগ করে নিল। কিন্তু একটা দেয়াল ভাগ করতে গিয়ে তাদের মাঝে ঝগড়া বেঁধে গেল। ঝগড়া যখন তুঙ্গে উঠল, তখন তারা সেই দেয়ালের ভেতর থেকে একটা অচেনা আওয়াজের দিকে কান পেতে ধরল। দেয়ালের ভেতর থেকে আওয়াজ এলো, তোমরা ঝগড়া বন্ধ করো। তোমরা আদাজল খেয়ে নেমেছো, সেই আমার প্রকৃত পরিচয়টা আগে শুনে নাও। এরপর দেয়াল বলতে শুরু করল, এক সময় আমি পৃথিবীর বাদশা ছিলাম। বিশাল রাজ্যের অধিপতি ছিলাম। এরপর একদিন আমি মৃত্যু বরণ করলাম। আমার সুন্দর সুঠাম দেহ পঁচে-গলে মাটিতে পরিণত হয়ে গেল। আমার দেহ-গলিত সেই মাটি নিয়ে কুমার কলসি তৈরি করল। দীর্ঘদিন আমি  সেই কলসির আকৃতিতেই ছিলাম। এরপর হঠাৎ একদিন আমাকে ভেঙ্গে ফেলা হলো। আবার আমি মাটির সাথে মিশে মাটি ও বালুতে পরিণত হলাম। এর কিছুদিন পর আমাকে ওঠিয়ে এনে ইট তৈরি করা হলো।
পরবর্তীতে সেই ইট দিয়ে তোমাদের এই দেয়াল তৈরি করা হয়। সুতরাং কেন তোমরা এই ক্ষণস্থায়ী দুনিয়ার তুচ্ছ বস্তু নিয়ে অযথা ঝগড়ায় জড়িয়ে পড়ছো। সৎকর্ম কর আরো যা কিছু তোমার আছে তাই নিয়ে সন্তুষ্ট থাক।

লেখাটি পাঠিয়েছেন: গোলাম মওলা আকাশ
Previous
Next Post »
0 মন্তব্য