কৌশিক জাতক

একবার বারানসি রাজা সবলে যুদ্ধ জাত্রা করছিলেন। তিনি নগর বাইরে এক উদ্যানে শিবির স্থাপন করেছিলেন। বোধিসত্ত্ব তখন রাজার অমাত্য ছিলেন।
ঐ সময় সেই উদ্যানে এক পেচক বাঁশের বনের মধ্যে লুকিয়ে ছিল। পেচক নিশাচর প্রাণী। তারা দিনের বেলায় বের হয় না নিজ বাসা থেকে। পেচককে দেকতে পেয়ে দলে দলে কাক এসে তার চারিদিকে ভিড় করল।
পেচক তখন দিন কি রাত সূর্য অস্ত গেছে কিনা তা না দেখেই বাঁশের ঝোপ থেকে বের হয়ে পালাবার চেষ্টা করল। তখন কাকেরা তাকে আঘাত করতে করতে মাটিতে ফেলে দিল।
তখন তা দেখে রাজা বোধিসত্ত্বকে ডেকে বললেন, পণ্ডিত বর, কাকেরা পেচককে মাটিতে ফেলে দিল কেন?
বোধিসত্ত্ব বললেন, যারা অকালে বাসা থেকে বের হয়, তাদের এই দশাই হয়। এইজন্যই অকালে বাসিস্থান হতে বের হতে নেই। তারপর বোধিসত্ত্ব একটি গাথার মাদ্যমে বললেন, যারা বুদ্ধিমান তাদের কালাকাল জ্ঞান থাকে। তারা অকালে বাড়ি থেকে কোথাও যায় না। বহু সেনা থাকা সত্ত্বেও রাজাদের পক্ষে অকালে অথবা বর্ষাকালে জুদ্ধজাত্রা করা অনুচিত। তা হলে অশেষ দুর্গতি ভগ করতে হয়। বিচক্ষণ ব্যক্তি বিপক্ষের সব ছিদ্র জেনে জুদ্ধে অবতীর্ণ হয়ে শত্রুদের দমন করে। পেচক দিনে দেখতে পায় না, কিন্তু কাকেরা রাত্রিকালে দেকতে পায় না। তাই পেচক যদি রাত্রি কালে বের হত তাহলে কাকেরা তার কিছুই করতে পারত না।
বোধিসত্ত্বের এই বাণী শূনে প্রীত হলেন বারানসি রাজ। তিনি ঘোষণা করে দিলেন, বর্ষাকালে তিনি যুদ্ধ যাত্রা করবেন না। তিনি নিজের ভুল বুজতে পারলেন। সামান্য একটি পেচকের দৃষ্টান্ত দ্বারা বোধিসত্ত্ব রাজাকে কালাকাল জ্ঞান দান করে কখন বাড়ি থেকে বের হতে হয় বা কখন কোন কাজে বাড়ি থেকে বের হতে নেই তা ব্যাখ্যা করে দিলেন।
কৌশিক পেচকের আর এক নাম।

[সংগ্রহীত]
Previous
Next Post »
0 মন্তব্য